1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : ডেস্ক রিপোর্ট : ডেস্ক রিপোর্ট
বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২, ০১:৫৮ পূর্বাহ্ন

রামগঞ্জে চন্ডিপুর ইউপি চেয়ারম্যান কামাল হোসেনের বিরুদ্ধে অপপ্রচারে সাংবাদিক সম্মেলন

সংবাদ দাতার নাম
  • সময় : মঙ্গলবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২০
  • ৪১৯ জন পড়েছেন

রামগঞ্জ(লক্ষ্মীপুর)প্রতিনিধি:

আমি ষড়যন্ত্রের শিকার, আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। ১০ টাকা চাউলের সৃষ্ট ঘটনার সাথে আমি জড়িত নয়। আমাকে জড়িয়ে বিভিন্ন মিডিয়াতে যে প্রচার করা হয়েছে তাও সম্পূর্ণ অসত্য। সংবাদ সম্মেলনে এমন বক্তব্য তুলে ধরেন রামগঞ্জ উপজেলার চন্ডিপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ কামাল হোসেন ভূঁইয়া।চেয়ারম্যান কামাল ভূঁইয়া সাংবাদিকদের বলেন, আমি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হিসেবে মহামারি করেনা ভাইরাস প্রতিরোধে হাট-বাজার, মসজিদের মানুষকে সামাজিক দুরত্ব রাখার জন্য কাজ করেছি। রামগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশে গত এক মাস যাবত ইউনিয়নের মানুষদের সুরক্ষা রাখতে কাজ করতে গিয়ে অনেককে কঠোর হয়ছি। যার কারণে আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে ১০ টাকা চাউলের ঘটনার সাথে জড়িয়েছে। যা সত্য নয়।তিনি আরো বলেন , প্রকৃত পক্ষে আমি ডিলারের সাথে আমার কোন সম্পৃক্ত নাই। বরং ডিলার যাতে কোন অনিয়ম না করতে পারে। তার কাছে যে ৪ শ কার্ডের ৩১ জনের কার্ডের চাউল কেউ নেয়নি। সেগুলো বাজেয়াপ্ত করেছি। যাতে অসহায় শ্রমজীবী মানুষ পেতে পারে। কিন্তু ডিলার আবুল কাশেম ওই কার্ডের জন্য জোরপ্রয়োগের চেষ্টা করছে। আমি ইউএনও ও খাদ্য কর্মকর্তাতে অবগত করি। এসব ঘটনা স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীদেরও জানাই। পরবর্তীতে ওইসব চাউল আবুল কাশেম ডিলার গরীবদের নিকট দু’শ টাকা বাড়তি নিয়ে বিক্রি করে। প্রশাসন জানতে পেরে আমাকে সংবাদ দেয়, ঘটনাস্থলে গিয়ে জানতে পারি এমন একটি ঘটনা। অথচ আমাকে সমাজে হেয়প্রতিপন্ন করার উদ্দেশে এমন অপপ্রচার চালাচ্ছে। আমি তীব্র নিন্দা জানাই।প্রকৃতপক্ষে অনিয়মের সাথে জড়িত থাকায় আবুল কাশেম ডিলারের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। এবং তাকে কালো তালিকা ভূক্তও করা হয়েছে। আমি সুষ্ঠ তদন্তের মাধ্যমে উপযুক্ত শাস্তি দাবী করি।এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুনতাসির জাহান বলেন, অভিযুক্ত ডিলার আবুল কাশেমের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে এবং তাকে কালো তালিকা ভূক্ত করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তীতে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।প্রসঙ্গত : গত ১০ এপ্রিল ওই ইউনিয়নের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর আওতায় হতদরিদ্রদের ১০ টাকা দরে চাউল কার্ডধারীর বাহিরে বাড়তি টাকায় বিক্রি করে ডিলার আবুল কাশেম। পরবর্তীতে তথ্যের ভিতিত্তে জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থা (এন এস আই) ওই চাউল চব্দ করে। পরে ডিলার চেয়ারম্যানকে জড়িয়ে ঘটনার বর্ননা দেয়। সেটি বিভিন্ন মিডিয়াতে প্রচার হয়।

সংবাদটি আপনার সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার দিন

এই ক্যাটাগরীর আরোও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিশেষ সংখ্যা