1. admin@protidinershomoy.com : admin :
  2. protidinershomoy@gmail.com : Showdip : Meherabul Islam সৌদিপ
  3. mamunshohag7300@gmail.com : মামুন সোহাগ : মামুন সোহাগ
  4. nasimriyad24@gmail.com : বার্তা সম্পাদক : বার্তা সম্পাদক
শনিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২১, ০৯:০৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম
বেলকুচিতে পৌর নির্বাচনে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থীর সাজ্জাদুল হক রেজার জয় এসিল্যান্ডের প্রচেষ্টায় জনবান্ধবে পরিণত নাগরপুর উপজেলা ভূমি অফিস বেনাপোলে স্বদেশ ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেড এর অভিষেক অনুষ্ঠান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন তৃনমূল পর্যায়ে পৌঁছে দিতে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মুকুলের বিশাল কর্মী সমাবেশ আ’লীগের শ্রম ও জনশক্তি উপকমিটির সদস্য হলেন আর্কিটেক্ট নিখিল চন্দ্র গুহ রাত শেষ হলেই বেলকুচি পৌরসভা নির্বাচন নাগরপুরে সড়ক উন্নয়ন কাজের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন নাগরপুরে রোটারী ক্লাবের উদ্যোগে শীতবস্ত্র কম্বল বিতরণ ভাঙ্গায় বিট পুলিশিং সভা অনুষ্ঠিত বেলকুচি পৌর নির্বাচনে বহিরাদের আতঙ্কে পৌরবাসী 

করোনা পজিটিভ দাম্পত্য চিকিৎসকের আমৃত্যু সেবা দেয়ার প্রতিশ্রুতি

সংবাদ দাতার নাম
  • সময় : বৃহস্পতিবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২০
  • ৯৬ Time View

আবির হোসাইন শাহিন স্টাফ রিপোর্টার

ময়মনসিংহ শহরের চরপাড়া নয়াপাড়া এলাকায় করোনা আক্রান্ত ‘ডাঃ হামিদা আক্তার সেঁওতি’-র ফেসবুক টাইমলাইন থেকে নেয়া

“সবাই বলছে কাউকে বলো না।
কেন বলব না??আমি তো কোনো দোষ করি নাই।আমি আপনাদের সেবা করতে গিয়ে আক্রান্ত হয়েছি।লকডাউনে যখন আপনারা বাড়িতে বসে সময় কিভাবে কাটাবেন তা নিয়ে দুশ্চিতাগ্রস্হ ছিলেন তখন আমি হয়তো কোনো কোভিড ১৯ পজিটিভ ব্যাক্তির পাশে দাড়িয়ে ।হ্যা আমি কোভিড ১৯ পজিটিভ।এতে আমার কোনো লজ্জা বা ভয় বা আফসোস নাই।বরং আমি খুব গর্বিত।কারণ আমি শেষদিন পর্যন্ত কাজ করে এসেছি।এখন যদি মরেও যাই আমার আফসোস থাকবে না।কারণ আমি ডাক্তার হিসেবে যে শপথ নিয়েছিলাম তা পালন করে এসেছি।আমি যতদিন পেরেছি আপনাদের জন্যে হাসপাতালে এবং মাঠে কাজ করেছি।যেদিন আমার মনে হল আমার নিজেরই স্যাম্পল পাঠানো দরকার,আমি সাথে সাথে স্যাম্পল পাঠিয়ে নিজেকে কোয়ারান্টাইনড করেছি।আমার পক্ষে যতদুর সম্ভব মানুষ এড়িয়ে চলেছি।নিজের বাড়িতেও ফিরিনি যহেতু আমারো পরিবার আছে,বাড়িতে বৃদ্ধ শ্বশুর শ্বাশুড়ি আছেন।তারপরো আজ আমার এলাকার মানুষের কাছে(যে এলাকায় ভাড়া থাকি)যে ব্যবহার পেয়েছি আমি ও আমার স্বামী তা আমি কোনোদিন ভুলব না।
একটা কথা বলে যাই…নগর পুড়লে কি দেবালয় এড়ায়?????

আগামী বছর বেঁচে থাকলে এই স্মৃতি টা ভেসে উঠবে ফেবুর পাতায়।আগামী বছরের শুভ নববর্ষ,১৪২৭!সবার মঙ্গল হোক।”

উল্লেখ্য উনি ব্রাজ্ঞনবাড়িয়া স্বাস্থ কমপ্লেক্সে কর্মরত ছিলেন। বর্তমানে উনি এবং উনার স্বামী নগরীর এস.কে হাসপাতালে কোভিড-19 চিকিৎসাধীন আছেন। ডাক্তার হামিদা আক্তার সেঁওতি আপনি আবার ফিরে আসবেন বীরের মতো দেশবাসীর এই প্রত্যাশা, আপনি একজন সাহসী বীর, স্যালুট আপনাকে শতকোটি।

মহান আল্লাহপাক এই ডাক্তার দম্পতিকে সুস্থ করে তুলুন। আমিন.

সংবাদটি আপনার সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার দিন

এই ক্যাটাগরীর আরোও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You cannot copy content of this page