1. admin@protidinershomoy.com : admin :
  2. protidinershomoy@gmail.com : Showdip : Meherabul Islam সৌদিপ
  3. mamunshohag7300@gmail.com : মামুন সোহাগ : মামুন সোহাগ
  4. nasimriyad24@gmail.com : বার্তা সম্পাদক : বার্তা সম্পাদক
  5. protidinershomoy24@gmail.com : Abir Ahmed : Abir Ahmed
  6. shujanthakurgaon@gmail.com : Sujon Islam : Sujon Islam
শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১, ১১:২৮ পূর্বাহ্ন

চিরিরবন্দরে অযথা ঘুরলেই পুলিশকে দিতে হবে কৈফত

সংবাদ দাতার নাম
  • সময় : বৃহস্পতিবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২০
  • ১৬৩ জন পড়েছেন

ভরত রায় প্রত্যয়, চিরিরবন্দর (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ করোনাভাইরাস মোকাবেলায় সরকারের নির্দেশনা বাস্তবায়নে সারা দেশের ন্যায় দিনাজপুরের চিরিরবন্দরেও স্থানীয় প্রশাসন, সেনাবাহিনী ও পুলিশ কঠোর অবস্থান নিয়েছে। গতকাল বুধবার দিনাজপুর জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা অনুযায়ী দিনাজপুর জেলাকে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৬ এপ্রিল) দিনব্যাপী উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় মাইকিং করে জনগণকে ‘সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার’ আহ্বান জানানো হয়। পাশাপাশি ‘জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বের হতে নিষেধ’ করা হয়।

দুপুর থেকে উপজেলা সদর সহ বিভিন্ন স্থানে পথচারীদের বাইরে বের হওয়ার কারণ জানতে চাওয়া হয়। রাস্তায় রাস্তায় তল্লাশি চৌকি বসিয়ে পুলিশের সদস্যদের ব্যক্তিগত গাড়ির যাত্রীদের ঘরের বাইরে আসার কারণ জানতে দেখা গেছে।

অবশ্য উপজেলার অনেক স্থানে রাস্তায় লোকজনকে ব্যক্তিগত গাড়ি ব্যবহার করতে দেখা গেছে। রাজধানীর বাইরে সামাজিক দূরত্ব বজায় না রেখে লোকজন হাট-বাজারে জড়ো হয়। অনেক স্থানে দোকানে আড্ডা দিতেও দেখা গেছে লোকজনকে। তবে বিভিন্ন স্থানে নির্দেশনা না মানায় প্রশাসনের কার্যক্রম দেখা গেছে।

এসময় ঘুঘুরাতলী মোড়ে পুলিশে দায়িত্বরত এস.আই আজাদ বলেন, মানুষকে বারবার বলার পরও তারা ঘর থেকে বের হচ্ছে। তাদেরকে সতর্কতা অবলম্বন করাতে মাঠে নেমেছি আমরা।এ সময় কয়েকজন পথচারীকে মোটরসাইকেল আরোহীকে তাঁদের প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়।

সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত চিরিরবন্দর ঘুঘুরাতলী সহ বিভিন্ন বাজারের দোকান বেশির ভাগই খোলা ছিল। পরে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর উপস্থিতি টের পেয়ে দোকানদাররা বাসায় চলে যান। তবে গ্রাম অঞ্চলের কিছু কিছু এলাকায় চৌকি ছাড়া জোরালো টহল দেখা যায়নি।

এবিষয়ে জানতে চাইলে চিরিরবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুব্রত কুমার সরকার বলেন, গত কয়েক দিন জরুরি সেবার বাইরেও অনেক দোকান খোলা থাকতে দেখা গেছে। এ ছাড়া বিভিন্ন অলিগলিতে চলেছে আড্ডা। সরকারি নির্দেশনার পরও অনেকেই বাইরে বের হচ্ছে। তবে প্রতি মুহূর্তে আমরা কঠোর আইন প্রস্তুত করবো।

সংবাদটি আপনার সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার দিন

এই ক্যাটাগরীর আরোও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You cannot copy content of this page