1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : ডেস্ক রিপোর্ট : ডেস্ক রিপোর্ট
বুধবার, ০৬ জুলাই ২০২২, ০৩:৩৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
শিক্ষক হত্যার প্রতিবাদে নাগরপুরে মানববন্ধন ভারতের পুলিশ কমিশনারের আমন্ত্রণে মাদক বিরোধী সেমিনার ও রেলিতে বাংলাদেশের রসায়নবিদ ডক্টর মোঃ জাফর ইকবাল জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শক্ত হাতে আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব দিচ্ছেন: হাসান ইকবাল নাগরপুরে ৫০ গ্রাম হেরোইনসহ এক মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার বন্ধ হচ্ছে ঠাকুরগাঁও পৌরসভার মধ্যে টোল আদায় ভারতে জেল খেটে বেনাপোল দিয়ে দেশে ফিরেছে ২৫ জন তরুন তরুনী সিলেটে বর্ন্যার্তদের মাঝে ইঞ্জিনিয়ার মোঃ জসীম উদ্দিন প্রধানের উদ্যোগে উপহার সামগ্রী বিতরণ  ঠাকুরগাঁওয়ে শহীদ জননী জাহানারা ইমামের ২৮তম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত ফুলবাড়ীতে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার রোধকল্পে কর্মশালা অনুষ্ঠিত পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে নাগরপুরে নানা কর্মসূচি

ঠাকুরগাঁওয়ে “চালের ভাগ চেয়ে মারধর” পুত্রসহ আ.লীগ নেতা জেলহাজতে

সংবাদ দাতার নাম
  • সময় : রবিবার, ২৬ এপ্রিল, ২০২০
  • ৪৬৬ জন পড়েছেন

সুজন ঠাকুরগাঁও  জেলা প্রতিনিধিঃ ঠাকুরগাঁওয়ে দুস্থ-মানুষের জন্য বিতরণ করা ত্রাণের ভাগ না দেওয়ায় এক ইউপি সচিবকে মারধর করা অভিযোগে আওয়ামী লীগ নেতা ও তার ছেলেক কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

রোববার সকাল ৮টার দিকে দণ্ডপ্রাপ্ত এ দুইজনকে ঠাকুরগাঁও জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন হরিপুর থানার ওসি মো. আমিরুজ্জামান।

গত শনিবার বিকালে জেলার হরিপুর উপজেলার গেদুড়া ইউনিয়ন পরিষদে এ মারধরের ঘটনা ঘটে।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন-হরিপুর উপজেলার গেদুড়া ইউনিয়নের বাসিন্দা শওকত আলী (৪৫), তিনি হরিপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক ও তার ছেলে রুহুল আমিন (২২)।

গেদুড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল হামিদ বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে কর্মহীন হয়ে পড়া দুস্থ মানুষের জন্য ত্রাণ বিতরণের কার্যক্রম চলছে। গত শনিবার বিকালে ছেলে রুহুল আমিনকে সঙ্গে নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদে আসেন আওয়ামী লীগ নেতা শওকত আলী।

এসময় আওয়ামী লীগ নেতা শওকত আলী ও তার ছেলে ত্রাণ কার্যক্রমের ভাগ চেয়ে ইউপি সচিব বাসেদ আলীর সঙ্গে বাগবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন।

এক পর্যায়ে শওকত আলী ও তার ছেলে রুহুল আমিন মিলে ইউপি সচিব বাসেদ আলীকে বেধড়ক মারধর শুরু করে।

তিনি জানান, তাৎক্ষণিকভাবে বিষয়টি হরিপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আবদুল করিমকে জানানো হয়। কিছুক্ষণের মধ্যে ইউএনও ইউপি পরিষদ কার্যালয়ে চলে আসেন এবং ভ্রাম্যমাণ আদালত গঠন করেন।

আদালতে অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করেন শওকত আলী ও তার ছেলে রুহুল আমিন। এরপর শওকত আলীকে সাত দিনের ও তার ছেলে রুহুল আমিনকে দুই মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয় ভ্রাম্যমাণ আদালত।

শওকত আলীর রাজনৈতিক পরিচয় নিশ্চিত করে হরিপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জিয়াউল হাসান বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে অসহায় মানুষের জন্য প্রধানমন্ত্রীর বরাদ্দ দেওয়া ত্রাণ কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে বিতরণে আমরা অঙ্গীকারবদ্ধ। শওকত আলীর বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

হরিপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবদুল বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে যখন আমরা সবাই দিন-রাত পরিশ্রম করছি, সুষ্ঠুভাবে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করছি। আর তখন একজন ইউপি সচিবকে মারধর করা হবে এটা মেনে নেয়াও যায় না।

অভিযোগের সত্যতা পেয়ে শওকত আলী ও তার ছেলে রুহুল আমীনকে দণ্ডবিধির ১৮৬ ধারায় সরকারি কাজে বাধাদানের অভিযোগে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয় বলে জানান তিনি।

সংবাদটি আপনার সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার দিন

এই ক্যাটাগরীর আরোও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিশেষ সংখ্যা