1. admin@protidinershomoy.com : admin :
  2. nasimriyad24@gmail.com : ডেস্ক রিপোর্ট : ডেস্ক রিপোর্ট
রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০৭:২৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম
ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স-এ চালু হয়েছে বিনা মূল্যে সিজার ও অপারেশন নাগরপুরে আওয়ামী লীগের কার্যকরী সভা ভাঙ্গায় ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী লিটন মাতুব্বরের গনসংযোগ শহীদ শেখ রাসেলের ৫৫তম জন্মদিনে বিনম্র শ্রদ্ধা : হাসান ইকবাল তারুণ্যের জয়গান’কে ধারণ করে রাজশাহী বরেন্দ্র প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাকালীন কমিটি ঘোষণা  ইউসুফ ভূঁইয়া’র খালাতো ভাইয়ের মৃত্যুতে হাসান ইকবালের শোক প্রকাশ নাগরপুরে দশমী পূজার মধ্য দিয়ে শারদীয়া দুর্গোৎসবের সমাপ্ত নাগরপুরে এগার ইউনিয়নে ভোট ২৮ নভেম্বর নওগাঁয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে ব্যাচেলর যুব সংঘের বস্ত্র ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণ নাগরপুরে পূজা মন্ডপ পরিদর্শন করলেন এমপি টিটু

চেয়ারম্যান আমির আলী গাইনের নেতৃত্বে কয়রার ঘাটাখালী বেড়ীবাঁধ কাজে অংশ গ্রহন

সংবাদ দাতার নাম
  • সময় : বৃহস্পতিবার, ১১ জুন, ২০২০
  • ২৯৫ জন পড়েছেন

শাহ্ হিরো, খুলনা জেলা প্রতিনিধি:
আমাদী ইউনিয়নের বার বার নির্বাচিত মাদার তেরেসা পুরষ্কার প্রাপ্ত চেয়ারম্যান জনাব আলহাজ্ব আমির আলী গাইনের নেতৃত্বে কয়রার ঘাটাখালী ভাঙ্গা বেড়ীবাঁধের রিং বাঁধ কাজে আমাদী ইউনিয়ন থেকে ৩৫০ জন আপামর জনতার বেড়ীবাঁধের কাজে সেচ্ছায় অংশ গ্রহন করেন।এ সময় আমাদী ইউনিয়নের সংরক্ষিত মহিলা ওর্য়াডের সকল মহিলা ইউপি সদ্যস উপস্থিত ছিলেন।এ ছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন ইউপি সদস্য শাহ্ মো:রবিউল ইসলাম,বাবু বিশ্বজিৎ সিনহা,অজয় কুমার গোল্ডেন,হাবিবুল্লাহ,অমলেন্দু সানা,প্রশান্ত কুমার বাইন,এ ছাড়া উক্ত কাজে আরো অংশ গ্রহন করেন বাগালি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জনাব আ:সাওার পাড় সহ তার ইউনিয়নের নির্বাচিত মেম্বর সহ বিভিন্ন শ্রেণির লোক।কয়রার আপামর জনতার অক্লান্ত পরিশ্রমে ঘাটাখালী এলাকার ভাঙা বেড়ীবাঁধের রিং বাঁধ নির্মাণ সম্পন্ন হয়েছে। এ সময় কয়রা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জনাব শফিকুল ইসলাম বলেন কয়রার মানুষ আবারও প্রমাণ করেছে জনগণের ঐক্যবদ্ধ শক্তির সামনে কোনো কিছুই অসম্ভব নয়।
আজ থেকে কয়রা সদরের লোকালয়ে আর জোয়ার ভাটা দেখতে হবেনা। দীর্ঘ ২০টি দিন পরে স্বস্তি ফিরেছে সদর ইউনিয়নের মানুষের মনে।
তবে বাঁধ মজবুত করতে আগামীকালও আমরা বাঁধে কাজ অব্যাহত রাখবো।
আজ বাঁধ এলাকায় লোক সমাগমে রেকর্ড সৃষ্টি হয়েছিল, দশ হাজারেরও বেশি মানুষ ভোরবেলা থেকে সেচ্ছায় শ্রম দিয়ে ঘাম ঝরিয়েছে জোয়ার আসার আগপর্যন্ত । এদের মধ্যে অধিকাংশই এই জনপদের গরীব অসহায় খেটে খাওয়া মানুষ।তিনি বলেন একটাই আকুতি,রিং বাঁধটির তদারকির দায়িত্ব নিন। আবার যেনো ধসে না পড়ে, তার জন্য প্রতিনিয়ত সংষ্কার কাজ অব্যাহত রাখুন।

সংবাদটি আপনার সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার দিন

এই ক্যাটাগরীর আরোও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিশেষ সংখ্যা