1. admin@protidinershomoy.com : admin :
  2. protidinershomoy@gmail.com : Showdip : Meherabul Islam সৌদিপ
  3. mamunshohag7300@gmail.com : মামুন সোহাগ : মামুন সোহাগ
  4. nasimriyad24@gmail.com : বার্তা সম্পাদক : বার্তা সম্পাদক
বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ১০:৪৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম
নড়াইল শহরের মধ্যে ফোর লেন সড়ক নির্মান বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন ঠাকুরগাঁওয়ে সাংবাদিকের পরিবারকে কুপিয়ে জখম, প্রতিবাদে রাজপথে গণমাধ্যম কর্মীরা মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে নৌকার বিকল্প নেইঃ আব্দুর রহমান আরব আমিরাতে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমেকে ফুলেল শুভেচছা জানালেন বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন ও স্মৃতি সংসদ ঠাকুরগাঁওয়ে সাংবাদিকের পরিবারের উপর হামলা জি এম কাদেরের ৭৩তম জন্মদিনে হাবিব খান ইসমাইলের শুভেচ্ছা কাপাসিয়ায় মানবতার ঘরে করা যায় করোনা টিকা গ্রহণের রেজিস্ট্রেশন ভাঙ্গায় চাদাঁর দাবীতে মাটি কাটা ভেকু ও ট্রাক ভাংচুরের অভিযোগ রামগঞ্জে দেহলা দিশারী স্পোর্টিং ক্লাবের উদ্যোগে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে রচনা প্রতিযোগিতা ও পুরষ্কার বিতরণ সলঙ্গার হাটিকুমরুলে এলিট পার্সেল এন্ড কুরিয়ার সার্ভিসের নতুন শাখার উদ্ভোদন

চেয়ারম্যান আমির আলী গাইনের নেতৃত্বে কয়রার ঘাটাখালী বেড়ীবাঁধ কাজে অংশ গ্রহন

সংবাদ দাতার নাম
  • সময় : বৃহস্পতিবার, ১১ জুন, ২০২০
  • ২১১ জন পড়েছেন

শাহ্ হিরো, খুলনা জেলা প্রতিনিধি:
আমাদী ইউনিয়নের বার বার নির্বাচিত মাদার তেরেসা পুরষ্কার প্রাপ্ত চেয়ারম্যান জনাব আলহাজ্ব আমির আলী গাইনের নেতৃত্বে কয়রার ঘাটাখালী ভাঙ্গা বেড়ীবাঁধের রিং বাঁধ কাজে আমাদী ইউনিয়ন থেকে ৩৫০ জন আপামর জনতার বেড়ীবাঁধের কাজে সেচ্ছায় অংশ গ্রহন করেন।এ সময় আমাদী ইউনিয়নের সংরক্ষিত মহিলা ওর্য়াডের সকল মহিলা ইউপি সদ্যস উপস্থিত ছিলেন।এ ছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন ইউপি সদস্য শাহ্ মো:রবিউল ইসলাম,বাবু বিশ্বজিৎ সিনহা,অজয় কুমার গোল্ডেন,হাবিবুল্লাহ,অমলেন্দু সানা,প্রশান্ত কুমার বাইন,এ ছাড়া উক্ত কাজে আরো অংশ গ্রহন করেন বাগালি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জনাব আ:সাওার পাড় সহ তার ইউনিয়নের নির্বাচিত মেম্বর সহ বিভিন্ন শ্রেণির লোক।কয়রার আপামর জনতার অক্লান্ত পরিশ্রমে ঘাটাখালী এলাকার ভাঙা বেড়ীবাঁধের রিং বাঁধ নির্মাণ সম্পন্ন হয়েছে। এ সময় কয়রা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জনাব শফিকুল ইসলাম বলেন কয়রার মানুষ আবারও প্রমাণ করেছে জনগণের ঐক্যবদ্ধ শক্তির সামনে কোনো কিছুই অসম্ভব নয়।
আজ থেকে কয়রা সদরের লোকালয়ে আর জোয়ার ভাটা দেখতে হবেনা। দীর্ঘ ২০টি দিন পরে স্বস্তি ফিরেছে সদর ইউনিয়নের মানুষের মনে।
তবে বাঁধ মজবুত করতে আগামীকালও আমরা বাঁধে কাজ অব্যাহত রাখবো।
আজ বাঁধ এলাকায় লোক সমাগমে রেকর্ড সৃষ্টি হয়েছিল, দশ হাজারেরও বেশি মানুষ ভোরবেলা থেকে সেচ্ছায় শ্রম দিয়ে ঘাম ঝরিয়েছে জোয়ার আসার আগপর্যন্ত । এদের মধ্যে অধিকাংশই এই জনপদের গরীব অসহায় খেটে খাওয়া মানুষ।তিনি বলেন একটাই আকুতি,রিং বাঁধটির তদারকির দায়িত্ব নিন। আবার যেনো ধসে না পড়ে, তার জন্য প্রতিনিয়ত সংষ্কার কাজ অব্যাহত রাখুন।

সংবাদটি আপনার সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার দিন

এই ক্যাটাগরীর আরোও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *