1. admin@protidinershomoy.com : admin :
  2. nasimriyad24@gmail.com : ডেস্ক রিপোর্ট : ডেস্ক রিপোর্ট
শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৩২ অপরাহ্ন
শিরোনাম
১৫ দফা দাবি মেনে নেওয়াই কাভার্ডভ্যান-ট্রাক মালিক-শ্রমিকদের ধর্মঘট প্রত্যাহার নাগরপুরে মাসকলাই বীজ ও সার বিতরণ দূর্গা পুজার শুভেচ্ছা হিসাবে ভারতে প্রথম চালানে ২৩.১৫ মেট্রিক টন ইলিশ রপ্তানি ঠাকুরগাঁও বালিয়াতে ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল অনুষ্ঠিত ফুলবাড়ীতে চাষীদের মাঝে বিনামূল্যে বীজ ও সার বিতরণ উদ্বোধন। নড়াইলে হত্যা মামলার প্রধান আসামি ইউপি চেয়ারম্যানসহ গ্রেফতার ৩ যুক্তরাষ্ট্র আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনায় এস, এম, গোলাম রব্বানী চৌধুরী জাতিসংঘের এসডিজি অগ্রগতি পুরস্কার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অর্জন করায় শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন মোঃ ইদ্রিস ফরাজী ঠাকুরগাঁও বালিয়াতে ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল অনুষ্ঠিত এসডিজি অগ্রগতি পুরস্কার প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা পাওয়ায় হাসান ইকবালের শুভেচ্ছা

পঞ্চগড়ে হোটেল ব্যাবসায়ীকে কূপিয়ে হত্যার চেষ্টা,থানায় মামলা

সংবাদ দাতার নাম
  • সময় : রবিবার, ১৯ জুলাই, ২০২০
  • ৭৭ জন পড়েছেন

পঞ্চগড়ের সদর উপজেলার বরকতিয়া বাজারে নিজ দোকানে ক্রেতা কম হওয়ায় পাশের হোটেলে ক্রেতা সমাগম,খাবারের মান ভালো ও বিক্রি বেশী হওয়ায় শরীফ হোসেন (২৬) নামে এক হোটেল মালিককে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করার চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে পাশের হোটেলের মালিক হানিফ আলীর ছেলে হাফিজুল ইসলামের বিরুদ্ধে । এদিকে আহত হোটেল মালিক শরীফ হোসেনের বাবা রবিউল ইসলাম পরদিন শনিবার রাতে পঞ্চগড় সদর থানায় হাফিজুল ইসলামকে প্রধান আসামী করে তার বাবা হানিফসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। তবে পুলিশ এখনও আসামীদের আটক করতে পারেনি ।

গত ১৭ জুলাই (শুক্রবার) দুপুরে পঞ্চগড় সদর উপজেলাধীন সাতমেরা ইউনিয়নের বরকতিয়া বাজারে এঘটনাটি ঘটে । জানা গেছে,আহত হোটেল মালিক শরীফ হোসেন সদর উপজেলার হাফিজাবাদ ইউনিয়নের টোকাপাড়া এলাকার রবিউল ইসলামের ছেলে ।

মামলার এজাহার সুত্রে জানা যায়,শরীফ হোসেন সদর উপজেলার সাতমেরা ইউনিয়নের বরকতিয়া বাজারে এক বছর ধরে হোটেল ব্যবসা করে আসছিল। শরীফের হোটেল চালু করার পর থেকেই তার হোটেলে ক্রেতা ও তার খাবার সামগ্রীর মান ভালো হওয়ায় বিক্রি ও ক্রেতা ও লোক সমাগম বৃদ্ধি পেতে শুরু করে এবং তার হোটেল ব্যবসা দিন দিন উন্নতি হওয়ার কারণে বাজারের হানিফ আলী নামে অপর আরেক হোটেল ব্যবসায়ীর হোটেলে ক্রেতা সমাগম ও বিক্রি হ্রাস পায় । শরীফের হোটেলে বিক্রি ও ক্রেত সমাগম বেশী হওয়ার কারণে হানিফের হোটেলে বিক্রি ও ও ক্রেতা হ্রাস পায় । যার কারণে শরীফের হোটেল নষ্ট ও উচ্ছেদ করার বিভিন্ন ষড়যন্ত্র চালায় হানিফ ও তার ছেলে হাফিজুল। এদিকে গত ১৭ জুলাই (শুক্রবার) দুপুরে বাজারে লোক সমাগম না থাকায় শরীফকে হোটেলে একা পেয়ে হাফিজুল তার বাবা হানিফ,স্ত্রী,ভাই ও ভাইরাকে সাথে নিয়ে তার হোটেলে যায় এবং শরীফের হোটেলের মালামাল,জিনিসপত্র ভাঙচুর করে হোটেলের ক্যাশ টেবিলের ডয়্যার থেকে নগদ অর্থ বের করে নেয়। হাফিজুল ও তার স্বজনরা শরীফকে মারধর ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে হত্যার চেষ্টা করে এবং হাফিজুল চাপাতি দিয়ে শরীফকে কূপিয়ে জখম করলে শরীফ মাটিয়ে পড়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তার চিৎকারে ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে দ্রুত উদ্ধার করে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করলে তার অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে কর্তব্যরত চিকিসক উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (রমেক) প্রেরণ করেন এবং বর্তমানে সেখানে সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এদিকে মামলার প্রধান আসামী হাফিজুল ইসলামের সাথে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলে তার মুঠোফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। তবে হাফিজুলের বাবা হানিফ আলী জানান, শুক্রবার দুপুরে আমার বাড়িতে গিয়ে আমার ছেলে বউয়ের ঘরে ঢুকে শরীফ। পরে আমার বউমা চিৎকার করলে সে পালিয়ে যায়। আমার ছেলে বাড়িতে আসলে আমার ছেলে ও বউমা শরীফের হোটেলে গিয়ে তাকে জিজ্ঞাসা করে যে কেন সে তাদের ঘরে ঢুকে এনিয়ে তাদের মধ্যে কথাকাটি হয় এক পর্যায়ে শরীফ পিছলে মাটিয়ে পড়ে যায় এবং মাটিতে ভাঙ্গা গøাস থাকায় গøাস দিয়ে তার কপালে কেটে যায় ।

এদিকে আহত শরীফ হোসেন বাবা রবিউল ইসলাম জানান,আমার ছেলে দীর্ঘদিন ধরে বরকতিয়া বাজারে হোটেল করতো ্তার হোটেলে বিক্রি ভালো হতো কিন্তু পাশের হোটেলের মালিক হানিফের হোটেল তেমন না বিক্রি না হওয়ায় সে বিভিন্ন ষড়যন্ত্র করে আসছিল আমার ছেলের বিরুদ্ধে। শুক্রবার আমার ছেলেকে হোটেলেএকা পেয়ে হানিফ ও তার ছেলে হাফিজুল মারধর করে এবং ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাকে কূপিয়ে যখম করে পালিয়ে যায়। আমার ছেলে বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি আছে। তারা আমার ছেলেকে মারধর করে তারাই আবার এখন মিথ্যা বানোয়াট অভিযোগ করছে। হানিফ তার বউমাকে দিয়ে আমার ছেলেকে ফাঁসিয়ে দেয়ার ষড়যন্ত্র করছে।

তবে স্থানীয়দের কাছে জানতে চাইলে নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক অনেকেই জানান,মূলত হোটেলে বিক্রি ও ক্রেতা সমাগমের জের ধরে শরীফ ও হানিফের ছেলে হাফিজুলের সাথে মারধরের ঘটনাটি ঘটে। আমরা শরীফের বিরুদ্ধে নারী বিষয়ক এমন কোন ঘটনা আমরা কখনও শুনিনি ।

এবিষয়ে পঞ্চগড় সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু আক্কাস আহম্মদ জানান,আহত হোটেলে ব্যবসায়ী শরীফের বাবা শনিবার রাতে থানায় একটি মামলা দায়ের করে। মামলার আসামীদের আটকের চেষ্টা চলছে।

 

সংবাদটি আপনার সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার দিন

এই ক্যাটাগরীর আরোও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিশেষ সংখ্যা

You cannot copy content of this page