1. admin@protidinershomoy.com : admin :
  2. protidinershomoy@gmail.com : Showdip : Meherabul Islam সৌদিপ
  3. nasimriyad24@gmail.com : বার্তা সম্পাদক : বার্তা সম্পাদক
রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১২:৫০ অপরাহ্ন
শিরোনাম
লোহাগড়ার মল্লিকপুর ইউনিয়নে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী সমাজ সেবক মুনসী শরীফুল ইসলাম মামুনুল-ফয়জুলের গ্রেপ্তার দাবি নতুন কর্মসূচি ঘোষণা দিয়ে শাহবাগের অবরোধ প্রত্যাহার দাদা কর্তৃক বিক্রিত শিশু সন্তান উদ্ধার করলো পিবিআই সিরাজগঞ্জ উল্লাপাড়ায় দেশ সেরা শ্রেষ্ঠ প্রতিবেদক হিসেবে পদক পেলেন সাংবাদিক শিশির আলম কেশরহাট পৌর মেয়র শহিদুজ্জামানের নির্বাচনী সভা পীরগঞ্জে পৌর নির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী চূড়ান্ত রামগঞ্জে পৌর সোনাপুর ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী ফয়সাল মালের নির্বাচনি মোটরবাইক শোডাউন সিরাজগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল কায়েস গ্রেপ্তার ! আমির আলাী গাইন কে আবারো চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চায় আমাদী ইউনিয়ন বাসি ঋষিজের বর্ষপূর্তিতে সম্মাননা পেলেন ৫ গুণীজন

শার্শায় অননুমোদিত ও লাইসেন্স বিহীন দুটি ক্লিনিক সিলগালা

সংবাদ দাতার নাম
  • সময় : মঙ্গলবার, ১০ নভেম্বর, ২০২০
  • ৩৪৯ Time View

মোঃ সাহিদুল ইসলাম শাহীন,বেনাপোল(যশোর):-
যশোর সিভিল সার্জনের ঝটিকা অভিযানে শার্শা উপজেলার নাভারণে স্বাস্থ্য বিভাগের অনুমতি ও লাইসেন্স ছাড়াই চালানোর অভিযোগে দুইটি বেসরকারি ক্লিনিক সিল-গালা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার(১০ নভেম্বর) সকাল ১১টার দিকে শার্শা উপজেলার নাভারণ বাজারে অবস্থিত এ সি ল্যাব ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও জোহরা ক্লিনিকে যশোর সিভিল সার্জন শেখ আবু শাহিন ঝটিকা অভিযান চালিয়ে স্থায়ীভাবে বন্ধ করে দেন। দীর্ঘ দুই বছর ধরে স্বাস্থ্য বিভাগের অনুমতি ও লাইসেন্স ছাড়াই এ সি ল্যাব ডায়াগনস্টিক সেন্টার গোপনে কাজকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে এমন তথ্যের ভিত্তিতে যশোর সিভিল সার্জন অভিযান পরিচালনা করে প্রথমে এ সি ল্যাব ডায়াগনস্টিক সেন্টার সিল-গালা করে বন্ধ করে দেন। এ সি ল্যাব ডায়াগনস্টিক সেন্টারের পরিবেশ ও রুগীসেবার মান অতি নিম্নমানের হওয়ার কারনে তিনি এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। পরে তিনি জোহরা ক্লিনিকে অভিযান পরিচালনা করেন। জোহরা ক্লিনিকে সনদধারি কোন ডাক্তার ও নার্স খুজে পাওয়া যায়নি। সেখানেও পরিবেশ ও রুগীসেবার মান অতি নিম্নমানের হওয়ার কারনে তিনি জোহরা ক্লিনিকও সিল-গালা করে বন্ধ করে দেন।

যশোর সিভিল সার্জন শেখ আবু শাহিন বলেন, নাভারণের দুইটি ক্লিনিক এ সি ল্যাব ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও জোহরা ক্লিনিক রুগীসেবা দেয়ার মত কোন পরিবেশ সৃষ্টি করতে পারেনি এবং লাইসেন্স ছাড়াই গোপনে কাজকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে। দুইটি ক্লিনিকের সনদধারি কোন ডাক্তার ও নার্স খুজে পাওয়া যায়নি। প্যাথলজি, ইসিজি ও আল্ট্রাসনোগ্রামের বা অন্যান্য বিভাগগুলির পরিবেশ এতই নাজুক অবস্থায় আছে যা চিকিৎসা সেবা প্রদানের জন্য সম্পূর্ণ অযোগ্য বলে গন্য করা যায়। স্বাস্থ্য বিভাগের নিয়ম-নীতির ভিতরে চিকিৎসা সেবা দিতে ব্যর্থ হওয়ায় দুইটি ক্লিনিক সিল-গালা মেরে বন্ধ করে দেয়া হলো। অভিযানের সময় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার ইউসুফ আলী সাথে ছিলেন।

প্রেরক:-মোঃ সাহিদুল ইসলাম শাহীন
বেনাপোল প্রতিনিধি
শার্শা,যশোর।
মোবাইল:-০১৭৯১৩১২১১১।

সংবাদটি আপনার সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার দিন

এই ক্যাটাগরীর আরোও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You cannot copy content of this page