1. admin@protidinershomoy.com : admin :
  2. nasimriyad24@gmail.com : ডেস্ক রিপোর্ট : ডেস্ক রিপোর্ট
মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০৭:৫৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম

মানহানির ঘটনায় চায়ের দোকানি আজিজুরের বিরুদ্ধে ইউপি চেয়ারম্যানের থানায় জিডি

সংবাদ দাতার নাম
  • সময় : শুক্রবার, ২০ নভেম্বর, ২০২০
  • ১৩৮ জন পড়েছেন

মানহানির ঘটনায় চায়ের দোকানি আজিজুরের বিরুদ্ধে ইউপি চেয়ারম্যানের থানায় জিডি

মোঃ সাহিদুল ইসলাম শাহীন, বেনাপোল(যশোর):- শার্শা উপজেলার নিজামপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ আবুল কালাম আজাদের বিরুদ্ধে চায়ের দোকানী’র মিথ্যা অভিযোগ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়ায় মানহানির কারনে শার্শা থানায় জিডি করেছেন চেয়ারম্যান নিজে।

উল্লেখ্য, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে চায়ের দোকানী আজিজুরের মিথ্যা বক্তব্য ভাইরালে বলা হয়- ক্ষমতার অপব্যবহার করে সেবা মুলক কাজে নিয়োজিত জনপ্রতিনিধিরা বিভিন্ন হীনমন্যতার কাজ করছে বলে একাধিক অভিযোগ উঠেছে। পাওনা টাকা চাওয়ায় নিজ হাতে চায়ের দোকান ভেঙ্গে দিয়েছে বলে দোকানদার অভিযোগ করেছে।

এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান বলেন,প্রকৃত ঘটনাকে উপেক্ষা করে চেয়ারম্যান এর বিরুদ্ধে বিভিন্ন ভাবে যে সমস্ত অভিযোগ প্রকাশ করা হয়েছে তা অনভিপ্রেত এবং উদ্দেশ্য প্রনোদিত বলে চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ জানান। আমার বিরুদ্ধে কেউ হয়তো ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। প্রতিহিংসা পরায়ন হয়ে আগামী ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামী লীগের আরেকটি গ্রুপ ঘটনাকে অন্যদিকে প্রবাহিত করে আমার জনপ্রিয়তা নষ্ট করতেই কৃত্রিম এবং বানোয়াট তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল করা হয় বলে তিনি অভিযোগ করেন। ভাইরাল মিথ্যা সংবাদের তীব্র নিন্দা এবং প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

অপরদিকে, ১৮ নভেম্বর/২০২০ ইং তারিখ ঘটনার দিন ঘটনাস্থলে উপস্থিত স্বাক্ষীগন ঐ ইউনিয়নের গোড়পাড়া গ্রামের মৃত নওয়াব আলী মোড়লের ছেলে মোঃ খলিলুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ হাইমুদ্দিন খান এর ছেলে মোঃ আলাউদ্দিন,মৃত শমশের আলী’র ছেলে গ্রাম পুলিশ আবু হানিফ এবং কন্দপপুর গ্রামের মৃত আফিল উদ্দিনের ছেলে গ্রাম পুলিশ মোঃ মিজানুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, ঘটনার দিন সকাল ১১টার দিকে ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে আগত অতিথিদের চা আপ্যায়নের জন্য গ্রাম পুলিশ মোঃ মিজানুর রহমান কে আজিজুরের চায়ের দোকানে পাঠান। পাওনা ১১,৩৮৮ টাকা না দিলে চা দেওয়া যাবেনা বলে চা-দোকানি স্রেফ জানিয়ে দেয়,গ্রাম পুলিশ মিজানুর বার বার অনুরোধ জানালেও চা-দোকানী চা দিতে অস্বিকার যান। কথাগুলো চেয়ারম্যান এর কানে গেলে নিজেই চা’র দোকানে গিয়ে অনুরোধ করলে চা-দোকানী জোর গলায় তর্কবিতর্ক শুরু করে, ঐ সময় ক্ষীপ্ত হয়ে চা-দোকানী দাম্ভিক্যের সাথে নিজের দোকানের চুলা নিজেই ভাংচুর করে,এতে স্বাক্ষীগন বাধা দিলেও দোকানী শোনেনি।

মানহানির ঘটনায় আজ শুক্রবার(২০ নভেম্বর) চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ নিজে বাদী হয়ে চা-দোকানি আজিজুরের বিরুদ্ধে শার্শা থানায় একটি সাধারন ডায়েরী করেছেন। জিডি নং-৮৩২ তারিখঃ-২০ নভেম্বর/২০২০ ইং।

সংবাদটি আপনার সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার দিন

এই ক্যাটাগরীর আরোও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিশেষ সংখ্যা