1. admin@protidinershomoy.com : admin :
  2. protidinershomoy@gmail.com : Showdip : Meherabul Islam সৌদিপ
  3. mamunshohag7300@gmail.com : মামুন সোহাগ : মামুন সোহাগ
  4. nasimriyad24@gmail.com : বার্তা সম্পাদক : বার্তা সম্পাদক
  5. protidinershomoy24@gmail.com : Abir Ahmed : Abir Ahmed
শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১, ০৭:২৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
রসায়নবিদ আলহাজ্ব ড. জাফর ইকবালকে সংবর্ধনা, ইফতার ও দোয়া মাহফিল নাগরপুরে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কার্যালয় উদ্বোধন এবং কর্মহীনদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ নাগরপুরে ৫০০ দরিদ্র ও দুস্থ পরিবারের মাঝে আাড়াই লক্ষ টাকা প্রদান নাগরপুরে রমজানে দরিদ্র ও দুস্থ পরিবারের মাঝে নগদ অর্থ বিতরণ রাজশাহী শিশু একাডেমিতে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার বিতরণ  প্রধানমন্ত্রীর উপহার পেল নাগরপুরের তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ শুরু হচ্ছে রিসার্চ ল্যাব চট্টগ্রামের আইওটি কর্মশালা বাগমারায় চলছে ঝাড়-ফুঁক আর কুফরি চিকিৎসা করোনায় এমন কোনো কার্যক্রম নেই, যা প্রধানমন্ত্রী করছেন না: আব্দুর রহমান নাগরপুরে ট্রাক-মোটরসাইকেল মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ১

বেলকুচিতে পুরাতন সিলেবাসে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা, চিন্তিত অভিভাবকরা

সংবাদ দাতার নাম
  • সময় : সোমবার, ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
  • ১৭৯ জন পড়েছেন

সবুজ সরকার স্টাফ রিপোর্টার :

সারাদেশে ন্যায় সিরাজগঞ্জের বেলকুচিতে এসএসসি ও সমমানের প্রথম দিনের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এবছর বেলকুচি উপজেলার ৬ টি কেন্দ্রে স্কুল, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মোট ৪ হাজার ৯৭ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করার কথা থাকলেও উপস্থিত ছিল ৪ হাজার ৮৩ জন শিক্ষার্থী।
এর মধ্যে একটি কেন্দ্রে হল সুপার তাপস মন্ডলের দায়িত্ব অবহেলার কারনে পুরাতন সিলেবাস অনুযায়ী পরীক্ষা নেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছে ঐ কেন্দ্রে পরীক্ষা দেওয়া শিক্ষার্থীরা।
শিক্ষার্থীরা জানায়, বেলকুচি উপজেলার দৌলপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে আমরা হল সুপার তাপস মন্ডলের দায়িত্ব অবহেলার কারণে ২০১৮ সালের (পুরাতন সিলেবাস) অনুযায়ী পরীক্ষা দিয়েছি।
আমরা তাকে বিষয়টি অবহিত করলেও তিনি বলেন তাতে কোন সমস্যা হবে না। তোমরা পরীক্ষা দাও। আমরা আমাদের পরীক্ষার বিষয়ে চিন্তিত আছি।

ছাত্রদের অভিভাবকরা জানান, আমাদের সন্তানদের ভবিষ্যৎ নিয়ে সংকিত। জানিনা তাদের কি হবে। শিক্ষক মানুষ কিভাবে এসএসসি পরীক্ষার মত জায়গায় কিভাবে ভূল করেন।

তবে এ বিষয়ে অত্র কেন্দ্রের হল সুপার তাপস মন্ডলের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, একজন শিক্ষার্থী পুরাতন সিলেবাসের অন্তর্ভুক্ত ছিল। এমন উত্তরের প্রক্ষিতে প্রতিবেদক জানতে চায় তাহলে কেন ২৫ জন শিক্ষার্থী কেন পুরতন সিলেবাসের প্রশ্ন পেল? পরে তিনি তার সঠিক ব্যাখা দিতে পারেননি।

এ ব্যাপারে মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এস এম গোলাম রেজা জানান, আমি বিষয়টি অবহিত হয়েছি। তবে এটা সম্পর্ণ হল সুপারের দায়িত্ব।

বেলকুচি উপজেলা নির্বাহী অফিসার সিফাত – ই- জাহান জানান, আমরা বিষয়টি অবহিত হওয়ার পর পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের সাথে কথা বলেছি। যারা পুরতন সিলেবাসে পরীক্ষা দিয়েছে তাদেরকে বিশেষ বিবেচনা দেখা বলে জানিয়েছেন। ছাত্রদের অভিভাবকেরা আমার কাছে একটা লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। আগামীকাল থেকে অন্য একজন ঐ কেন্দ্রের দায়িত্ব পালন করবে।

সংবাদটি আপনার সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার দিন

এই ক্যাটাগরীর আরোও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *