1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : ডেস্ক রিপোর্ট : ডেস্ক রিপোর্ট
শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ১১:৩৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম
বিজয়ের মাস উপলক্ষে ইউসুফ আলী পিন্টুর প্রাণঢালা শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন নিউইয়র্ক স্টেট আওয়ামী লীগের পরবর্তী কাউন্সিলে সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী মেহরাজ ফাহমী বিজয়ের মাস উপলক্ষে জেসমিন আক্তারের প্রাণঢালা শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিচক্ষণতার সহিত সবগুলো চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করেছেন: হাসান ইকবাল মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে হাসান ইকবালের শুভেচ্ছা  মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে জেসমিন আক্তারের শুভেচ্ছা বেনাপোলে ভ্যানের ভিতর লুকিয়ে রাখা ৯৪ লাখ টাকার স্বর্ণ উদ্ধার করলো ৪৯ বিজিবি বেনাপোলে ভ্যানের ভিতর লুকিয়ে রাখা ৯৪ লাখ টাকার স্বর্ণ উদ্ধার করলো ৪৯ বিজিবি আরএনবি’র শ্রেষ্ঠ ইন্সপেক্টর হলেন ফিরোজ যশোরের শার্শায় আফিল জুট মিলে ভয়াবহ আগুন : ২ ঘণ্টা পর নিয়ন্ত্রণ

বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য, ইবি শিক্ষার্থী সাময়িক বহিষ্কার

সংবাদ দাতার নাম
  • সময় : মঙ্গলবার, ৭ এপ্রিল, ২০২০
  • ৪১৭ জন পড়েছেন

।।বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি।।

হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করায় সেই শিক্ষার্থীকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ভারপ্রাপ্ত এসএম আব্দুল লতিফ স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে তার বহিষ্কার আদেশ জানা যায়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে সাজ্জাদ হোসেন সাজু নামে জনৈক ব্যক্তির ফেসবুক স্ট্যাটাসে (কেউ পারেনি যা, পেরেছে করোনার, করোনার ভয়ে ভারত থেকে পালিয়ে এসে ঢাকায় গ্রেপ্তার বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনি মাজেদ #স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী”) ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের এম.এ শ্রেণির ছাত্রী তানজিনা সুলতানা ছন্দ, রোল নম্বর ১৮০৯০৭৩ শিক্ষাবর্ষ ২০১৮-২০১৯ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সর্ম্পকে অবমাননাকর এবং মর্যাদাহানিকর মন্তব্য করে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এরূপ মন্তব্য বঙ্গবন্ধুর প্রতি অসম্মানজনক যা ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি বিনষ্ট করেছে। বিধায় উক্ত ছাত্রী তানজিদা সুলতানা ছন্দকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হলো। বিজ্ঞপ্তিতে আরোও বলা হয় কেন তাকে চূড়ান্তভাবে বহিষ্কার করা হবে না তা বিশ্ববিদ্যালয় খোলার পর ৭ কার্যদিবসের মধ্যে কারণ দর্শানোর জন্য বলা হলো।

বিষয়টি তদন্তপূর্বক রিপোর্ট পেশ করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়েরর উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-উর রাশিদ আসকারী, প্রক্টর অধ্যাপক ড. পরেশ চন্দ্র বর্ম্মনকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করেছেন। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- আইন বিভাগের অধ্যাপক ড. রেহেনা পারভিন এবং পরিসংখ্যান বিভাগের সভাপতি ড. সাজ্জাদ হোসেন।

সংবাদটি আপনার সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার দিন

এই ক্যাটাগরীর আরোও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিশেষ সংখ্যা