1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : ডেস্ক রিপোর্ট : ডেস্ক রিপোর্ট
সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ১০:৪৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
ইতালিতে কেন্দ্রের সিদ্ধান্ত অমান্য করে আওয়ামী লীগের সম্মেলন,বহিস্কার হবেন অনেকে ঠাকুরগাঁওয়ে ভূল্লীতে ট্রাকের ধাক্কায় বৃদ্ধ নিহত নাগরপুরে ইউপি নির্বাচনে ভ্রাম্যমান আদালতে জরিমানা, চাপাতি সহ আটক ১ লোহাগড়া নলদী ইউনিয়নে নৌকা প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা সলিমাবাদ ইউপিতে জনপ্রিয়তার শীর্ষে নৌকার মাঝি অপু ইউপি নির্বাচনে মেম্বার প্রাাথী শাহিন হাওলাদারের ব্যাপক প্রচারনা নাগরপুরে নির্বাচনী সংহিতায় নিহত ১ গুলিবিদ্ধসহ আহত ৪ লোহাগড়া ১২টি ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে ৬৭ প্রার্থী মনোনয়ন জমা খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি কামনায় নড়াইলে দোয়া মাহফিল ভাঙ্গার আলগী ইউনিয়নে নিজের অর্থায়নে জনহিতকর কাজ করে দৃষ্টান্ত রাখলেন ইউপি মেম্বার শওকত মোল্লা

কমলগঞ্জে রাতের আঁধারে মধ্যবিত্ত পরিবারে পাশে ‘মুকিত’

সংবাদ দাতার নাম
  • সময় : সোমবার, ২০ এপ্রিল, ২০২০
  • ২৮৬ জন পড়েছেন

সালাহ্‌উদ্দিন শুভ, মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে ৯টি ইউনিয়ন ও ১ টি পৌরসভার নিম্ন আয়ের মানুষদের সবাই সাহায্য করলেও বর্তমানে অসহায় হয়ে পড়েছে মধ্যবিত্ত পরিবারগুলো। এই পরিবারগুলো কখনো কারো কাছে হাত পেতে সাহায্য চাইতে না পারায় অভাবে দিন পার করছেন। কষ্টে দিন পার করলেও লজ্জায় সাহায্য চাইতে পারছেনা অনেক পরিবার। আর কষ্টে থাকা এই মধ্যবিত্ত পরিবারের মাঝে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে কমলগঞ্জে আব্দুল মুকিত। নীরবে মধ্যবিত্ত পরিবারের ঘরের দরজার সামনে রাতের আঁধারে খাদ্য সামগ্রী রেখে আসছেন।
নোভেল করোনাভাইরাস মোকাবেলায় গৃহবন্দি হয়ে থাকা সমাজের নিম্ন আয়ের মানুষদের সাহায্যের পাশাপাশি এবার সমাজের মধ্যবিত্ত পরিবারের মাঝে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে কমলগঞ্জের এই আব্দুল মুকিত। তিনি উপজেলার প্রতিটা এলাকায় ঘুরে খোঁজ নিয়ে কর্মহীন হয়ে পরা মধ্যবিত্ত পরিবারের ঘরের দরজার সামনে খাদ্য সামগ্রী রেখে আসছেন।
এ বিষয়ে আব্দুল মুকিত জানান, করোনাভাইরাসের প্রাতুর্ভাবের ফলে বর্তমান সময়ে সমাজের নিম্ন আয়ের মানুষের পাশাপাশি মধ্যবিত্ত পরিবারগুলো অসহায়ভাবে দিন পার করছে। কেননা উপজেলার সমস্ত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় মধ্যবিত্ত পরিবারগুলো কারো কাছে হাত পেতে সাহায্য চাইতে পারছে না। ফলে এই মধ্যবিত্ত অসহায় পরিবারগুলোর জন্য রাতের আঁধারে তাদের ঘরের দরজার সামনে খাবার রেখে চলে আসছেন।
এ সময় আব্দুল মুকিত আরো বলেন, এই পরিবারগুলো পরিস্থিতির শিকার। তারা যেন কোন লজ্জার মাঝে না পড়েন সে জন্য রাতের আঁধারে এই পরিবারগুলোর দরজার সামনে খাবার রেখে চলে আসা।
তিনি আরো বলেন, এই পর্যন্ত আমি ৬ শত পরিবারের মধ্যে খাবার পৌছে দিতে পেরেছি।আমি চাই সমাজের বৃত্তবানরা যেন এই সময়ে সবার পাশে এসে দাড়ায়।

সংবাদটি আপনার সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার দিন

এই ক্যাটাগরীর আরোও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিশেষ সংখ্যা