1. admin@protidinershomoy.com : admin :
  2. nasimriyad24@gmail.com : ডেস্ক রিপোর্ট : ডেস্ক রিপোর্ট
বৃহস্পতিবার, ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০২:২৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম
প্রকৌশলী হওয়ার স্বপ্ন মেধাবী স্নিগ্ধার পৈতৃক সম্পত্তি রক্ষায় ছেলের মামলা ভাষা আন্দোলনের মাধ্যমেই স্বাধীনতার বীজ রোপিত হয়েছিল: জেসমিন আক্তার ঠাকুরগাঁওয়ে ভূল্লীতে ৭০ পিচ ইয়াবা সহ গ্রেপ্তার-১ ঠাকুরগাঁওয়ে প্রতিমা ভাংচুরের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন আমাদের জাতি সত্তার প্রথম স্মারক ভাষা আন্দোলন: হাসান ইকবাল ঠাকুরগাঁওয়ে প্রতিমা ভাংচুর: ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলেন আ.লীগ নেতা টুলু নাগরপুরে একরাতে ১৬ বাড়িতে খড়ের গাদায় আগুন সাংবাদিক পরিচয়ে ল্যাগেজ সুবিধা না পাওয়ায় বিজিবির ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করার উদ্দেশ্য মিথ্যা ও বানোয়াট সংবাদ প্রকাশ ঠাকুরগাঁওয়ে বাবাকে খুন ছেলে থানায় গিয়ে স্বীকারোক্তি

নেত্রকোণায় পিসিআর ল্যাব স্থাপনের দাবী

সংবাদ দাতার নাম
  • সময় : বৃহস্পতিবার, ৩০ এপ্রিল, ২০২০
  • ৪৩৫ জন পড়েছেন

মামুন কৌশিক নেত্রকোণা প্রতিনিধি: করোনা ভাইরাস সনাক্তের জন্য দ্রুত নেত্রকোণা জেলায় একটি পিসি আর ল্যাব স্থাপনের দাবী জেলার বাসীন্দাদের।বৃহস্পতিবার বিকাল থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইজবুকে ক্যাম্পেইন চলছে।জেলার হাজার মানুষ প্লে কার্ডের মাধ্যমে এই দাবী জানিয়ে নিজেদের ফেইজবুক আইডিতে পোষ্ট দিয়েছেন।স্থানীয় বাসিন্দা ও সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে যে, ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজে স্থাপিত পিসিআর মেশিনের সক্ষমতার অভাব রয়েছে।যার কারণে ময়মনসিংহ সহ শেরপুর,জামালপুর,নেত্রকোণা ও সুনামগঞ্জের নমুনা পরীক্ষা করা সম্ভব হচ্ছেনা।জানা যায় প্রতিদিন দুইবারে মাত্র ১৮৮ টি নমুনা পরীক্ষা করা যায় ল্যাবটিতে।এতে করে অনেক নমুনা পরীক্ষা করতে বিলম্বিত হচ্ছে।গত ২ এপ্রিল থেকে গতকাল বুধবার পর্যন্ত ১ হাজার ১৪৪ জন রোগীর নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এর মধ্যে গতকাল রাত পর্যন্ত পরীক্ষা করা হয়েছে মাত্র ৪৯১ টির।প্রাপ্ত পরীক্ষাতে সনাক্ত হয়েছেন ৩৫ জন।বাকী ৬৫৩ টি নমুনা এখনও ল্যাবে জমা রয়েছে।এ অবস্থায় করোনা রোগী সনাক্ত ব্যবস্থা পুরোপুরি অচল হয়ে গেছে।তাই এখন নেত্রকোণা জেলার মানুষদের প্রাণের দাবী হল জেলায় একটি পিসিআর মেশিন স্থাপন।এ বিষয়ে নেত্রকোণা জেলার সিভিল সার্জন ডা: তাজুল ইসলাম খান বলেন যে, আমরা প্রতিদিন যতগুলো নমুনা সংগ্রহ করা সম্ভব সংগ্রহ করে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজের ল্যাবে পাটাচ্ছি।কিন্তুু ল্যাবের সক্ষমতা না থাকার কারণে দ্রুত পরীক্ষা হচ্ছে না।এই কারণে জেলায় দ্রুত সংক্রমণ ছড়িয়ে পরার সম্ভবনা রয়েছে। বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

সংবাদটি আপনার সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার দিন

এই ক্যাটাগরীর আরোও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিশেষ সংখ্যা