1. admin@protidinershomoy.com : admin :
  2. nasimriyad24@gmail.com : ডেস্ক রিপোর্ট : ডেস্ক রিপোর্ট
বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ০৬:৩৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম

বৌমার নির্যাতনের ভয়ে পূজা ঘরে পূজা করতে পাচ্ছে না বৃদ্ধা শাশুড়ী

সংবাদ দাতার নাম
  • সময় : মঙ্গলবার, ৫ মে, ২০২০
  • ৪৩২ জন পড়েছেন

সুজন ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধিঃ  বৌমার নির্যাতনের ভয়ে পূজা ঘরে পূজা করতে পাচ্ছে না বৃদ্ধা শাশুড়ী কামিনী বালা (৭০)। বৃদ্ধা কামিনী বালা এর প্রতিবাদ করতে গেলে চালানো হয় অমানবিক নির্যাতন। এমনটাই জানান,ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা ৫ নং বালিয়া ইউনিয়নের বড় বালিয়া গ্রামের মৃত. আতিয়ার ডাক্তারের স্ত্রী বৃদ্ধা কামিনী বালা (৭০)।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান,মৃত. আতিয়ার ডাক্তার ছিলেন খুব ভালো মনের মানুষ। আতিয়ার ডাক্তার ও তার বউয়ের মধ্যে সম্পর্কটা ছিলো ভালো। তাদের সংসারের একমাত্র ছেলে শ্রী. ধলা (গসাই) এর বিয়ে দেওয়ার পর থেকে দেখা যায় শাশুড়ী ও বউমার মধ্যে ঝগড়া বিবাদ। প্রায় শুনা যায় শাশুড়ী কামিনী বালাকে মারধর করে বৌমা জয় কৃষ্ণা। স্বামী আতিয়ার ডাক্তারের মৃত্যুর পর বেড়ে যায় আরো নির্যাতনের মাত্রা।

সোমবার সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বৃদ্ধা কামিনী বালা ঠিক মতো দাঁড়াতে পাচ্ছে না। হাতে এক থলা গরুর খাবার আর চোখে পানির ছলছল। আমাদেরকে দেখে বলেন আপনারা কারা। এ সময় সাংবাদিক পরিচয় দিলে হাউ মাউ করে কেঁদে উঠেন বৃদ্ধা কামিনী বালা।

কামিনী বালা জানান, আমার স্বামী যখন বেঁচে ছিলো তখন আমাদের সংসারটা ছিলো সুখের। আমাদের কোন কিছুর অভাব ছিলো না । একমাত্র ছেলে গসাই এর বিয়ের দেওয়ার পর থেকে সংসারে নেমে আসে অশান্তি। স্বামী মারা যাওয়ার পর থেকে আমার বউমা আমাকে ঠিকমতো ভরনপোষণ দেয় না। আমাদের এখনো অনেক সম্পত্তি আছে তারপরেও আমি কষ্টে জীবন যাপন করি। আমি পূজা ঘরে প্রদ্বীপ নিয়ে পূজা করতে গেলে আমাকে বাধা দেয়। আমি এর প্রতিবাদ করাতে আমাকে প্রচুর মারধর করে। আমাকে ধরে আচ্ছার দেয়। আমি এখন শরীরের ব্যথায় নড়তে পারি না। আমি এর বিচার চাই।

এ বিষয়ে মেয়ে গীতা রাণীর সাথে কথা বললে তিনি জানান, আমার মাকে নির্যাতনের বিষয়টি আমি জানি। আমি এর বিচার চাই। ছেলে শ্রী. ধলা (গসাই) অভিযোগের বিষয়ে জানান, আমার বউয়ের সাথে মাঝে মধ্যে ঝগড়া হয়। আমার মায়ের বয়স হয়েছে তাই উল্টা পাল্টা কথা বলতেছে। আপনারা এগুলো লেখালেখি করিয়েন না।

বউমা শ্রী জয় কৃষ্ণার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ বিষয়ে কোন মন্তব্য করেননি। এ বিষয়ে ৫ নং বালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নূরে আলম সিদ্দিকী মুক্তি জানান, আতিয়ার ডাক্তারের স্ত্রী বৃদ্ধা কামিনী বালাকে নির্যাতনের বিষয়টি আমি অবগত আছি। আমি নিজেই কয়েকবার ছেলে গসাই ও বউমা জয় কৃষ্ণাকে শাসন করেছি। তারা কাউকে তোয়াক্কা করে না। আমি প্রশাসনের সহযোগীতা চাই।

সংবাদটি আপনার সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার দিন

এই ক্যাটাগরীর আরোও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিশেষ সংখ্যা