1. admin@protidinershomoy.com : admin :
  2. protidinershomoy@gmail.com : Showdip : Meherabul Islam সৌদিপ
  3. mamunshohag7300@gmail.com : মামুন সোহাগ : মামুন সোহাগ
  4. nasimriyad24@gmail.com : বার্তা সম্পাদক : বার্তা সম্পাদক
  5. protidinershomoy24@gmail.com : Abir Ahmed : Abir Ahmed
  6. shujanthakurgaon@gmail.com : Sujon Islam : Sujon Islam
মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ০৪:৫৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম
নাগরপুরে মানসিক ভারসাম্যহীন অজ্ঞাত এক ব্যাক্তির মৃত্যু বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে প্রাণঢালা শুভেচ্ছা জানিয়েছেন শেখ অলি আহাদ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে সুইডেন আওয়ামী লীগের শুভেচ্ছা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে ইতালি মহিলা আওয়ামী লীগের শুভেচ্ছা বার্তা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন ইউনূস আলী খান আওয়ামী লীগের ৭২ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে ইউসুফ আলী পিন্টুর শুভেচ্ছা আ.লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন সাখাওয়াত হোসেন মোহন আ.লীগের মূল নেতা হচ্ছে বঙ্গবন্ধু আর আজকের মূল নেতা হচ্ছে শেখ হাসিনা: হাসান ইকবাল রাজশাহীতে ভুল তথ্য দিয়ে লাইভ প্রচারের প্রেক্ষিতে, নিউজ পোর্টালের দুঃখ প্রকাশ রাজশাহীতে ৭ম আন্তর্জাতিক যোগ দিবস পালিত

‘টিকটক’র প্রলোভনে আট বছরে ৫ শতাধিক নারী পাচার

সংবাদ দাতার নাম
  • সময় : বুধবার, ২ জুন, ২০২১
  • ৩২ জন পড়েছেন

ভারতের কেরালার বেঙ্গালুরে বাংলাদেশি তরুণী নীপিড়ন ও ধর্ষণের ঘটনায় গ্রেপ্তার আশরাফুল মন্ডল রাফি ওরফে বস রাফির কাছ থেকে চাঞ্চল্যকর তথ্য পেয়েছে র‌্যাব। সোমবার রাফিকে ঝিনাইদহ থেকে তিন সহযোগীসহ গ্রেপ্তারকরে র‌্যাব।

 

জিজ্ঞাসাবাদে রাফি জানিয়েছেন, তারা মাত্র ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা করে নিয়ে গত আট বছরে কমপক্ষে ৫০০ তরুণীকে ভারতসহ বিভিন্ন দেশে পাচার করেছে। যাদের অধিকাংশই টিকটক মডেল হওয়া ও ভারতে উচ্চ বেতনে চাকরির প্রলোভ দেখিয়ে পাচার করা হয়।

 

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন।

 

সম্প্রতি বাংলাদেশের এক তরুণীকে ভারতে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল হয়। শারিরীক নির্যাতনের সময় ২২ বছরের ওই তরুণীকে দল বেঁধে ধর্ষণও করা হয়।

 

ওই ঘটনায় ভারতের বেঙ্গালুরু পুলিশ ছয়জনকে গ্রেপ্তার করে। এদের মধ্যে হৃদয়সহ দুজন পালানোর সময় গুলিবিদ্ধ হয়েছেন বলে জানিয়েছে ভারতের পুলিশ। নিরর্যাতনে অংশ নেয়া টিকটক হৃদয় বাবু ছাড়াও তিনজনকে শনাক্ত করা হয়। যারা যশোর ও ঝিনাইদহ এলাকার। চক্রের অন্যরাও বাংলাদেশি বলে ধারণা করা হচ্ছে।

 

ভারতে নির্যাতনের শিকার ওই তরুণীর বাবা গত ২৭ মে রাজধানীর হাতিরঝিল থানায় একটি মামলা করেন। ওই মামলার প্রেক্ষিতে আন্তর্জাতিক নারী পাচার চক্রের অন্যতম হোতা আশরাফুল মন্ডল ওরফে বস রাফিসহ চার সদস্যকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। র‌্যাব জানায়, চক্রটি সীমান্তে থাকা বিজিবি ও বিএসএফ সদস্যদের ‘ম্যানেজ’ করে কাঁটাতারের বেড়া কেটে গত আট বছরে ৫০০ নারীকে ভারতে পাচার করেছে। ভারতে নিয়ে এসব নারীকে মাদক সেবনসহ নানাভাবে নির্যাতন করে পতিতাবৃত্তিতে বাধ্য করে চক্রটি। নারীপ্রতি তারা ২০-৩০ হাজার টাকা নিত ভারতীয় দালালদের কাছ থেকে। এ ছাড়া মাসিক কিছু কমিশনও পেত তারা।

 

গ্রেপ্তার চক্রের বাকি তিন সদস্য হলেন বস রাফির অন্যতম নারী সহযোগী সাহিদা বেগম ওরফে ম্যাডাম সাহিদা (৪৬), মো. ইসমাইল সরদার (৩৮) ও মো. আব্দুর রহমান শেখ ওরফে আরমান শেখ (২৬)।

 

কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, পাচারের শিকার নারীদের যৌন নির্যাতন ও মাদক সেবন করানো হতো। তাদের বিভিন্নভাবে জিম্মি করে বিদেশে করতো এ চক্রটি। টিকটক ভিডিওর মাধ্যমে তারা সহজেই নারীদের আকর্ষণ করতো।

 

র‌্যাব পরিচালক বলেন, ‘বিদেশে মাত্র ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা করে পাঁচ শতাধিক নারীকে বিক্রি করে দিয়েছে এই চক্রটি। এসব নারীদের সঙ্গে দেশের বিভিন্ন বাংলো ও বিদেশের মাটিতে যৌন নির্যাতন করে সেগুলো ভিডিও ধারণ করা হতো। পরবর্তীতে সেই ভিডিও ভাইরাল করে দেওয়ার হুমকি দিয়ে তাদের জিম্মি করা হয়। তাদের ভারত থেকে অন্য দেশেও যেতে বাধ্য করা হয়।

 

কমান্ডার আল মঈন বলেন, সোমবার  ঝিনাইদহে অভিযান চালিয়ে আন্তর্জাতিক নারী পাচার চক্রের অন্যতম মূলহোতা আশরাফুল ইসলাম রাফি ও তার সহযোগী ম্যাডাম সাহিদাসহ চার সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়।

 

তিনি আরো বলেন, আশরাফুল ইসলাম রাফির (ভারতে রাফি নামে পরিচিত) হাত ধরে অনেক নারী ভারতে পাচার হয়েছে। টিকটকে মডেল হওয়ার কাজে ভারতে যাওয়ার প্রলোভন দেখালেও তাদের ভারতে নিয়ে গিয়ে জোরপূর্বক মাদক সেবন করিয়ে পতিতাবৃত্তিতে বাধ্য করানো হতো।

 

র‌্যাব কর্মকর্তা বলেন, এ চক্রটি ভিকটিমদের বৈধ ও অবৈধ দুভাবেই সীমান্ত পার করতা। তাদের বিভিন্ন কৌশলে সীমান্ত এলাকার সেফ হাউসে রাখতো। এরপর সেখান থেকে অন্যদেশে পাঠানো হতো। তিনি বলেন, আমাদের তৎপর বাড়ানো হচ্ছে এ ধরনের চক্রের সদস্যদের গ্রেপ্তারের র‌্যাব কাজ করে যাচ্ছে।

সংবাদটি আপনার সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার দিন

এই ক্যাটাগরীর আরোও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You cannot copy content of this page