1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : ডেস্ক রিপোর্ট : ডেস্ক রিপোর্ট
বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ১২:৪১ অপরাহ্ন
শিরোনাম
আমরা চাইবো দেশে একটি দায়িত্বশীল বিরোধীদল থাকুক: হাসান ইকবাল ঠাকুরগাঁওয়ে মাটি খুঁড়তে গিয়ে ২৪ টি রাইফেল,৩ টি এলএমজি উদ্ধার ঠাকুরগাঁও বালিয়া ইউনিয়নে উন্মুক্ত বাজেট ও মতবিনিময় সভা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার  স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে হাসান ইকবালের বার্তা ঠাকুরগাঁওয়ে মাদকসহ ২ ব্যবসায়ি গ্রেফতার বেনাপোল স্হলবন্দরে অনিদিষ্ট কালের জন্য পণ্য পরিবহন বন্ধ বাংলাদেশ দ্রুত শ্রীলংকায় পরিনত হতে যাচ্ছে মির্জা ফখরুল ইসলাম ঠাকুরগাঁওয়ে “নিউরন ডায়াগনস্টিক সেন্টারের” উদ্বোধন দেশ যখন এগিয়ে যাচ্ছে, নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মাসেতু করছে, তখন একটি মহল হতাশ: হাসান ইকবাল ঠাকুরগাঁওয়ে উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মাণে উৎপাদনশীলতার গুরুত্ব বিষয়ক সেমিনার

ছয়’শত শিক্ষার্থীর তালিকা চেয়ে জবি শিক্ষক সমিতির চিঠি

সংবাদ দাতার নাম
  • সময় : মঙ্গলবার, ২৮ এপ্রিল, ২০২০
  • ২৮০ জন পড়েছেন

জবি প্রতিনিধি : করোনা ভাইরাসের এ পরিস্থিতিতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ৬ শতাধিক অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীকে আর্থিক সহায়তা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জবি শিক্ষক সমিতি। ইতোমধ্যে তারা শিক্ষার্থীদের তালিকা চেয়ে প্রতিটি বিভাগের চেয়ারম্যানের নিকট চিঠি পাঠিয়েছেন। চিঠিতে প্রতি বিভাগ থেকে ২০জন করে শিক্ষার্থীর তালিকা চাওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৮ এপ্রিল) জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. নুরে আলম আব্দুল্লাহ গণমাধ্যমকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, করোনা ভাইরাস সংক্রমণে বাংলাদেশে সংকটময় পরিস্থিতি বিরাজ করছে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। অনেক অস্বচ্ছল পরিবারের সন্তান জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করে, যারা প্রধানত টিউশনি করে তাদের খরচ নির্বাহ করে। বর্তমান পরিস্থিতিতে তাদের টিউশনি বন্ধ রয়েছে এবং অনেকের মা-বাবার কোন কাজ না থাকায় তাদের জীবন নির্বাহ করা প্রায় দুঃসাধ্য হয়ে পড়েছে। এছাড়াও বর্তমান পরিস্থিতিতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের আরও কেউ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে পড়লে তা মোকাবেলার জন্য জরুরি ভিত্তিতে অর্থের প্রয়োজন দেখা দিতে পারে।

এর প্রেক্ষিতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষকের এক দিনের মূল বেতনের সমপরিমাণ অর্থ দেয়ার জন্য আহ্বান করে। শিক্ষক সমিতির এই ডাকে সাড়ে দেয় শিক্ষকরা। এনিয়ে এখনো পর্যন্ত ৯ লাখ ৬৪ হাজার টাকা ফান্ড জমা হয়েছে শিক্ষক সমিতির তহবিলে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের শিক্ষকরা সংখ্যায় কম। আর যারা আছেন সবাই নিজ নিজ বিভাগ ও এলাকায়ও সাহায্য সহযোগিতা করছেন। তা না হলে আমাদের আরো বড় ফান্ড করা যেতো। তবে যে ফান্ড সংগ্রহ হয়েছে এর মধ্য থেকে শিক্ষার্থী ও কর্মচারীদের জন্য খরচ করা হবে। তবে এক্ষেত্রে ঢাকায় যে সকল শিক্ষার্থী আটকা পড়েছেন তাদের প্রাধান্য দেয়া হবে। প্রতি বিভাগের চেয়ারম্যানদের কাছে শিক্ষার্থীদের তালিকা চাওয়া হয়েছে। তালিকা পেলেই আমরা কাজ শুরু করবো।

সংবাদটি আপনার সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার দিন

এই ক্যাটাগরীর আরোও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিশেষ সংখ্যা