1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : ডেস্ক রিপোর্ট : ডেস্ক রিপোর্ট
বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ০৫:০২ অপরাহ্ন
শিরোনাম
নাগরপুরে  কাভারভ্যান ও ইজিবাইকের মুখোমুখি সংর্ঘষ, নিহত ১ আহত ৩ ভোটারদের নিরাপত্তা চেয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনে আবেদন করলেন চেয়ারম্যান প্রার্থী শার্শায় জাতীয় কন্যা শিশু দিবস পালিত ইতালিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিনে আলোচনা সভা বেনাপোল বন্ধন ব্লাড ফাউন্ডেশন এর ১ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন রাজশাহীতে দৈনিক ডেল্টা টাইমস্”র বর্ষপূর্তি পালিত শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে টানা ৪ দিন আমদানি-রপ্তানি বন্ধ ডিজিটাল মার্কেটিং কি? মার্কেটিং করার ৮ টি সেরা মাধ্যম! বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশের অভিযানে গাঁজা সহ আটক-৩ নাগরপুরে সহবতপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন

সন্তানকে আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে পিতা মাতার ভূমিকা,ইউএনও ওয়াহিদুজ্জামান

মাসুদ রানা, নাগরপুর প্রতিনিধি
  • সময় : রবিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ১৬ জন পড়েছেন

আজকের শিশু আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। তাই আপনার সন্তানের ভবিষ্যৎ কেমন হবে সেটি নির্ভর করে আপনি আপনার সন্তানের জন্য কেমন ভূমিকা রেখেছেন। কারণ একটি শিশুর মানসিক বিকাশে যাদের ভূমিকা সবচেয়ে বেশি তারা হলেন মা বাবা। কেননা সন্তানের জন্য প্রথম ও প্রধান শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হচ্ছে তার পরিবার, মা-বাবা। কাজেই পিতা মাতা যা কিছু শেখাবেন তাই সন্তানেরা শিখবে এবং সে অনুযায়ী সুনাম বা সফলতা বয়ে আনবে।

তাই প্রত্যেক পিতা মাতা তাদের সন্তানকে আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে নিম্নোক্ত বিষয়গুলোকে গুরুত্ব দিতে পারেন। যেমন-

১. আবেগ নিয়ন্ত্রণ করাঃ মা-বাবা সন্তানকে খুব বেশি ভালোবাসবে এটাই স্বাভাবিক। অতিরিক্ত আদরে সে যেন অন্যায় কোনো আবদার না করে বসে। তাই ছোটবেলা থেকেই তার এবং আপনার নিজের আবেগ নিয়ন্ত্রণ করুন।

২. ধর্মীয় শিক্ষা প্রদানঃ আপনার সন্তানকে ধর্মীয় শিক্ষা প্রদান করুন। কারণ ধর্মীয় শিক্ষা আপনার শিশুকে সামাজিক, নৈতিক, ভদ্র, শান্ত ও অনুগত হতে সাহায্য করে।

৩. নৈতিক শিক্ষায় শিক্ষিত করাঃ সন্তানকে নৈতিক শিক্ষায় শিক্ষিত করতে শিশুকে ধর্মীয় মূল্যবোধ শেখানোর কোন বিকল্প নেই। বড়দের সম্মান করা, ছোটদের স্নেহ করা, সৎ পথে চলা, ন্যায়ের প্রতি ভালোবাসা, অন্যায়ের প্রতি ঘৃণাবোধ ইত্যাদি বিষয়গুলো একটি শিশুর জীবনকে সুন্দর করে তুলে।

৪. অধিক শাসন করা থেকে বিরত থাকুনঃ কখনোই সন্তানকে অতিরিক্ত শাসন করা উচিত নয়, কারণ অতিরিক্ত শাসন তাকে আপনার থেকে দূরে ঠেলে দেবে।

৫. সন্তানকে সময় দিনঃ আজকাল মা-বাবা বিভিন্ন কাজে অনেক বেশি ব্যস্ত থাকেন। ফলে সন্তানকে উপযুক্ত সময় না দেওয়ার কারণে সন্তান বিপথে চলে যায়। তাই সন্তানকে কার্যকর সময় দিন। তাদের ধারণা ও মতামত প্রকাশ করতে দিন।

৬. বন্ধুত্বপূর্ণ আচরণ করুনঃ আপনিই হতে পারেন আপনার সন্তানের সবচেয়ে প্রিয় আর বিশ্বস্ত বন্ধু। অবসর সময়ে তার সঙ্গে আড্ডা দিন। তাহলে সে আপনার সঙ্গে সহজ হতে পারবে আর সব কিছু শেয়ার করতে পারবে।

৭. সহপাঠী নির্বাচনে গুরুত্ব দিনঃ আপনার সন্তানের খোঁজ খবর রাখুন, সৎ সঙ্গ ও সুস্থ পরিবেশে গড়ে তুলতে সাহায্য করুন। ইতিবাচক শিক্ষায় গড়ে তুলুন। শিক্ষকদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রাখুন।

৮. শৃঙ্খলা মেনে চলতে শেখানঃ সন্তানকে ছোটবেলা থেকেই উৎসাহ দিন নিয়ম-শৃঙ্খলা মেনে চলতে। অনেকেই এটাকে পরাধীনতা মনে করে। আসলে নিয়ম মেনে চলা পরাধীনতা নয়। শৃঙ্খলা মানে হচ্ছে জীবনকে গুছিয়ে চলা, যা জীবনকে আরও সুন্দর ও পরিপাটি করে তুলে।

৯. খেলাধুলায় গুরুত্ব দিনঃ আপনার সন্তানকে খেলাধুলার প্রতি উৎসাহ প্রদান করুন। কেননা খেলাধুলা মানসিক বিকাশে অনেক সহায়ক ভূমিকা পালন করে। তাছাড়া শারীরিক গঠনের জন্য খেলাধুলার প্রয়োজনীয়তা অপরিহার্য।

১০. বই পড়তে উৎসাহ দিনঃ আপনার সন্তানকে বই পড়তে উৎসাহ প্রদান করুন। বই মানুষকে উদার হতে সাহায্য করে। তাই ছোটবেলা থেকেই বই পড়ার প্রতি মনোযোগী করুন।

১১. প্রযুক্তিগত শিক্ষা দিন সচেতনতার সঙ্গেঃ বর্তমান সময়ে আধুনিক প্রযুক্তি সম্পর্কে জানা খুব জরুরি। কিন্তু আমাদের তরুণ সমাজ বেশিরভাগ সময়েই তার অপব্যবহার করে থাকে। তাই প্রযুক্তি ব্যবহার সম্পর্কে আপনার সন্তানকে সচেতন করে তুলুন।

১২. মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ করাঃ আপনার সন্তানকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় দেশ প্রেমে উদ্বুদ্ধ করে সুখী সমৃদ্ধ দেশ গঠনে ভূমিকা রাখুন।

১৩. পরিশ্রমী হতে উৎসাহিত করুনঃ নিজের কাজ নিজেকে করতে উৎসাহ দিন। শারীরিক পরিশ্রমে মনে প্রশান্তি ও জীবনে সফলতা আসে। তাই নিজের কাজ নিজে করার মাধ্যমে শ্রমের মর্যাদা উপলব্ধি ও আত্মমর্যাদা বিকাশে সন্তানকে সহায়তা করুন।

লেখক : নাগরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) ওয়াহিদুজ্জামান ।

সংবাদটি আপনার সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার দিন

এই ক্যাটাগরীর আরোও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিশেষ সংখ্যা